বিজ্ঞাপন

সোসাইটির মূল ফটক খোলার অপেক্ষায় অধীর আগ্রহে থাকত অপু। অনু বের হয়ে এলে ব্যাগ থেকে একে একে বের করে দিত, যা থাকত অপুর ঝুড়িতে। এরপর আরও অনেক সময় পেরিয়েছে। বেড়েছে অনু-অপুর দূরত্ব । শহুরে শালিক এখন অনুর বারান্দায় বসে। অপু জানে সে কথা; তবুও তার বলার আছে অনেক কথা। ভাবনারা বড্ড বেসামাল! বোঝে না তেমন কোনো বারণ, মানে না বাধা। অপুর অনেক কথা এখনো হয়নি বলা…।

অনুকে অপু শেষবার দেখেছে অ্যাম্বুলেন্সের ভেতর। সাদা ধবধবে অ্যাম্বুলেন্স লাল বাতির হুডি ঘুরিয়ে চোখের পলকে বাম থেকে ডান দিকে চলে গেছে। অনু পারেনি এই ব্যস্ত অমানবিক চৌকাঠে নিজের জগৎ গড়তে। তবুও অপুর জিজ্ঞাসা, ‘কিসের এত তাড়া ছিল তার?’ অপু এখন আরেক সন্ধ্যার আশায়। বলতে চায় তার না বলা কথা।

তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক, ঢাকা মহানগর বন্ধুসভা

বন্ধুদের লেখা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন