কাজ নেই কারও বাড়ি, করে আনি চাল
কারওই খেতে চলে না এক চাষের হাল,
সংসার নুয়েছে আজ অভাব–অনটনে
কতটা বোঝালে আর পোলাপান বোঝে।
ক্ষুধার বিষম জ্বালা অনাহারি বোঝেন
দিন নাই, রাত নাই, দিকে দিকে ছোটেন,
আশপাশের বাড়িঘর জলে আছে ডুবে
এ বিপদে কে বলো কার পাশে রবে।

উঁচু উঁচু গড়িয়াছ যারা দালান–কোঠা
একবার সাড়া দাও বোঝ এ ব্যথা,
তুমি আছ কত সুখে দুইতলা ঘরে
ধড়ফড় করে প্রাণ ভয় যে ঝড়ের।
না খেয়ে, না ঘুমিয়ে কাটছে যে রাত
মহাসুখের ঘুমে তোমার হচ্ছে প্রভাত,
আমরা যে জলে ভাসা বানভাসি মানুষ
এবার একটু তোমার ফেরাও না হুঁশ।

কতকাল বলো আর কাটবে এভাবে
বন্যার জলধারা এভাবেই কি রবে,
ভেসে ভেসে বন্যার জলে স্বপ্ন আমার
এভাবেই ভেঙেচুরে দিনে দিনে হয় চুরমার।
তোমার কাছে খোদা, মোদের এই প্রার্থনা
বিপদেও দিয়ো বল, হতাশ করিয়ো না,
সব পরিস্থিতি যেন মোকাবিলা করি
দুর্দশা ভুলে যেন আলোর দুনিয়া গড়ি।

বন্ধুদের লেখা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন