default-image

সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে শিশু শিল্পী বিন ইয়ামিন খান রিদমের গাওয়া গান ‘সুন্দর পৃথিবী’। মাত্র তিন বছর বয়সেই রিদমের গানের হাতেখড়ি। ১০ বছর বয়সে এসে গেয়ে ফেলল জীবনের প্রথম মৌলিক গান। গানটির সংগীত পরিচালনা করেছেন সৈয়দ নাফিস। লিখেছেন জান্নাতুল বাকের নন্দন, সম্পর্কে যিনি রিদমের বাবা। বাবা-ছেলের মিলিত সুরের গানটি ইউটিউবে অবমুক্ত হয় ১৬ নভেম্বর।

‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান,/ সেদিন থেকে গানই জীবন গানই আমার প্রাণ’—কালজয়ী এই গানের মতোই শিল্পী রিদমের কথা বলতে শেখা আর গান গাওয়া অনেকটা একই সঙ্গে শুরু। বাবা জান্নাতুল বাকের নন্দন পেশায় ব্যবসায়ী হলেও অন্তরে লালন করেন শিল্প-সংস্কৃতি-সংগীত। যার খানিকটা প্রকাশ পাওয়া যায় তাঁর তিন ছেলের নামের মধ্যেই—সারগাম, সংগীত ও রিদম। শিল্পমনা এই বাবার উৎসাহেই ছোট ছেলে রিদমের গানের জগতে পথচলার শুরু। পড়ালেখার পাশাপাশি গানই এখন রিদমের ধ্যানজ্ঞান।

বিজ্ঞাপন

রিদম বলছিল, ‘একদিন বাবাকে বললাম, আমি ভালো করে গিটার শিখতে চাই। পরদিনই বাবা আমার জন্য একজন শিক্ষক ঠিক করে দেন। কদিন পর বাবা এই গান আমাকে দিয়ে বলেন, দেখো তো তুলতে পারো কি না। কয়েক দিনের মধ্যেই আমি পুরো গান তুলে ফেলি। তারপর আমার শিক্ষক জামিল স্যারকে দেখাই। স্যার কিছু জায়গা ঠিক করে দেন। এই পুরো গান তোলা, রেকর্ডিং, শুটিং—সবকিছু সুন্দরভাবে করতে পেরে আমি অনেক খুশি।’

প্রকাশের পর থেকেই গানটি বেশ প্রশংসিত হয়েছে। ‘আকাশের মায়ায় মেঘেদের ছায়ায়, ফুলে–ফসলে রোদে–জোছনায়/ প্রজাপতি রঙে পাখিদের গানে, সুখে–দুঃখে এই জল এই মাটি/ সুন্দর পৃথিবী মিলেমিশে থাকি, সুন্দর পৃথিবী ভালোবেসে বাঁচি’—এমনই চমৎকার কথা-সুরের গানটি বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে এর অসাধারণ ভিডিও চিত্রের জন্য। অক্টোবরের শুরুতে পুরো গানটির দৃশ্যধারণ করা হয়েছে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের ইনানী ও সুয়াইনখালীতে।

গানটির মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছেন চিত্রগ্রাহক ও পরিচালক আসিফ ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমি মূলত গানটির কথা, বিষয়, রিদমের বয়স ও চমৎকার গায়কি বিবেচনা করেই এর কাজের সঙ্গে যুক্ত হই। নন্দন ভাই, আমি, নাফিস ও রিদম সময় নিয়ে অনেক ভালোবাসা আর যত্নে পুরো কাজ করেছি। আমার মনে হয়, এই বয়সের কোনো শিল্পীর এ ধরনের মানের কোনো কাজ বাংলাদেশে প্রথম। আমি বিশ্বাস করি, দর্শক–শ্রোতারা গানটি দারুণ উপভোগ করবেন।’

default-image

সংগীত পরিচালক সৈয়দ নাফিস বলেন, ‘গানের চিত্রগ্রাহক ও পরিচালক আসিফ ইসলাম একদিন জানালেন, প্রকৃতি নিয়ে তো এখন খুব একটা গান হয় না। নন্দন ভাই প্রকৃতি নিয়ে একটা গান লিখেছেন। অবাক করার বিষয়, গানে কণ্ঠ দিয়েছে তাঁরই ছেলে ১০ বছরের রিদম। যেদিন নন্দন ভাই আর রিদমের সঙ্গে প্রথম দেখা, সেদিনই রিদম যেভাবে সরলতা নিয়ে আপন করে গানটা গেয়েছে, আমিও চিন্তা করলাম কোনো ভারিক্কি না রেখে খোলামনে মিউজিকটা যতটা আপন করে করা যায়, সেই চেষ্টাই করব। সেভাবেই পুরো কাজটা শেষ করেছি। দর্শক–শ্রোতারা দেখলেই বুঝতে পারবেন, এত ছোট বয়সে প্রফেশনালি চমৎকারভাবে গানটা নিজে ধারণ করে কতটা দরদ দিয়ে রিদম গেয়েছে।’

default-image

রিদম এখন পড়ছে পঞ্চম শ্রেণিতে। পড়ালেখার পাশাপাশি নিয়মিত গান শিখছে গুণী শিল্পী ও গানের শিক্ষক পুজান দাশের কাছে। রিদমের প্রথম মঞ্চে গান গাওয়া পাঁচ বছর বয়সে প্রথম আলো বন্ধুসভার একটি অনুষ্ঠানে। ছোট্ট শিল্পীবন্ধু রিদমের বাবা জান্নাতুল বাকের নন্দন প্রথম আলো বন্ধুসভা জাতীয় পরিচালনা পর্ষদের একজন উপদেষ্টা। রিদমের জন্য আমাদের অনেক অনেক শুভকামনা ও ভালোবাসা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0