বিএসবি-ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান লায়ন এম কে বাশারের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন ক্যামব্রিয়ান বন্ধুসভার সভাপতি তাবাসসুম ফাবিয়া। বক্তব্য দেন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন, প্রথম আলো বন্ধুসভা জাতীয় পরিচালনা পর্ষদের সাধারণ সম্পাদক জাফর সাদিক, নারায়ণগঞ্জ ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবদুল কাইয়ুম, বন্ধুসভা জাতীয় পরিচালনা পর্ষদের বইমেলাবিষয়ক সম্পাদক সাদিয়া রশ্মি, ম্যাগাজিনবিষয়ক সম্পাদক ফাহমিনা বর্ষা ও ক্যামব্রিয়ানের সমন্বয়কারী আনিসুর রহমান প্রমুখ।

আনিসুল হক বলেন, ‘আমাদের জ্ঞান আহরণ, অঙ্ক শেখা ও ইংরেজি জানার দরকার আছে। তোমরা তোমাদের চারপাশে আনন্দের যা কিছু আছে, সব করবে। তোমরা বিজ্ঞান ক্লাব, বিতর্ক ক্লাব, নাচের ক্লাব, সংগীতের ক্লাব করবে, প্রচুর খেলাধুলা করবে। পরীক্ষার রেজাল্ট যেন খারাপ না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। পরীক্ষার রেজাল্ট ভালো হলে তুমি পৃথিবীটাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আনিসুল হক আরও বলেন, ‘আমাদের যেমন নেতার দরকার আছে, তেমনি গবেষকও দরকার। এই যে করোনা এল, করোনার টিকা আবিষ্কৃত হলো—এটা তো আমার মতো কেউ আবিষ্কার করেনি, তাঁরাই আবিষ্কার করেছেন, যাঁরা সিরিয়াসলি পড়াশোনা করেছেন। যারা সিরিয়াসলি পড়াশোনা করে, তারা পারে। মানুষের উপকার করার জন্য পড়াশোনাও দরকার আছে। প্রচুর পড়াশোনা করবে, বই পড়বে, কবিতা পড়বে, সংস্কৃতি চর্চা করবে।’

শিক্ষার্থীদের মা–বাবার উদ্দেশে আনিসুল হক বলেন, ‘আপনাদের মনের ইচ্ছা ছেলেমেয়ের ওপর চাপিয়ে দেবেন না। জীবনটা উপভোগ করবে, অন্যের ক্ষতি করবে না, অন্যের ক্ষতি না করে আমরা যা করি, তা সবই ভালো।’
অনুষ্ঠানে আনিসুল হক শিক্ষার্থীদের কবিতা আবৃত্তি করে শোনান ও কৌতুক বলেন। শিক্ষার্থীরা সংগীত পরিবেশন করেন।

সভাপতির বক্তব্যে লায়ন এম কে বাশার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমরা ভালো কাজ করে গেলে মানুষ বহুকাল মনে রাখবে। শত বাধা পেরিয়ে এগিয়ে যেতে হবে, কেউ এগিয়ে যেতে চাইলে তাকে পেছনে টেনে রাখা যায় না। নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস ও ভরসা রাখতে হবে। দেশের প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে। প্রথম আলো বন্ধুসভা দেশব্যাপী অনেক ভালো ভালো কাজ করছে। প্রথম আলোকে সঙ্গে নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। এই ভালো কাজগুলো সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। এভাবে একদিন দেশ এগিয়ে যাবে।’