বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভোর ছয়টার বাসে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বান্দরবানের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেন চবি বন্ধুসভার সদস্যরা । চট্টগ্রাম শহর থেকে বের হয়ে কিছুক্ষণের মধ্যে পাল্টে যায় দৃশ্যপট। দুই দিকে উঁচু পাহাড় আর হরেক রকমের গাছ। পাহাড়ের নিচে আঁকাবাঁকা সড়ক। সড়কের কোথাও ঢালু, কোথাও উঁচু। নয়নাভিরাম এ শহর দেখতে যাওয়া মানুষ মুগ্ধ না হয়ে যেন পারেন না। সৃষ্টির এ যেন অন্যরকম প্রয়াস।

বান্দরবানের অন্যতম সুন্দর পর্যটন কেন্দ্র নীলাচল। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১ হাজার ৬০০ ফুট উঁচু এ জায়গায় বর্ষা, শরৎ ও হেমন্ত ঋতুতে ছোঁয়া যায় মেঘ। এ ছাড়া সেখানে দাঁড়িয়ে দূর থেকে দেখা যায় বান্দরবান শহর আর পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সাঙ্গু নদী। দৃষ্টি শূনে৵ মেলে দিলে দেখা যাবে উঁচু–নিচু পাহাড়। পাহাড়ের ওপর জমাট বেঁধেছে শুভ্র মেঘ। প্রকৃতির এমন গোছানো পরিবেশনা উপভোগ করতে চবি বন্ধুসভা ছুটে গিয়েছিল প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি নীলাচলে।

default-image

এর আগে বান্দরবানের অন্যতম সুন্দর স্থান মেঘলা পর্যটনকেন্দ্র ঘুরে দেখে বন্ধুরা। সেখানে ঝুলন্ত ব্রিজ, লেক, পাহাড় আর কেব্‌ল কার সবার মন থেকে ভুলিয়ে দেয় ব্যস্তময় জীবনের অবসাদ। ক্ষণিকের জন্য সবাই ফিরে যান শৈশবে, নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেয় হাসি-আনন্দ।

default-image

মেঘলা থেকে শৈলপ্রপাতের দূরত্ব খুব বেশি নয়। নীলাচলে যাওয়ার আগে শৈলপ্রপাত দেখার সিদ্ধান্ত নেন বন্ধুরা। শৈলপ্রপাতে পানি খুব বেশি না থাকলেও আনন্দ ছিল অসীম।

default-image

ভ্রমণের অন্যতম আকর্ষণীয় বিষয় ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। কবিতা, গান ও অভিনয়ের মাধ্যমে ভ্রমনের আনন্দ অনেক গুণ বাড়িয়ে দেন বন্ধুসভার বন্ধুরা।

বন্ধু, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধুসভা

কার্যক্রম থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন