default-image

৭ জানুয়ারি ২০২১। ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধুসভার সাপ্তাহিক বৈঠক চলছে। গুগল মিটের মাধ্যমে ৩০ জনের বেশি বন্ধু যুক্ত হয়েছেন ভার্চ্যুয়াল আড্ডায়। নিয়মিত আলোচনা শেষ হলে সভাপতি আহসান আরিফ চৌধুরী ঘোষণা দেন, ‘যাঁদের ব্যস্ততা আছে বা জরুরি কাজ আছে, তাঁরা চাইলে চলে যেতে পারেন।’

এরপর আহসান আরিফ চৌধুরী বললেন, ‘আমার এক ছোট ভাইয়ের বাড়ি লালমনিরহাট, নাম আজাদ। আজাদ আমাকে জানাল লালমনিরহাটের একজন নারীর ঘরের ছাউনি বলতে কিছুই নেই। বলা যায়, খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছেন। ঘরের একপাশ দিয়ে কুকুর ঢুকে আরেক পাশ দিয়ে বের হয়। অসহায় এই নারীর নতুন ঘর তৈরির জন্য কিছু অর্থ সাহায্যের প্রয়োজন। এখন পর্যন্ত কিছু টাকার জোগাড় হয়েছে। তবে ঘরের কাজ সম্পন্ন করতে আরও বেশ কিছু টাকা প্রয়োজন। অনেক চেষ্টা করেছি তাঁকে সাহায্য করতে কিন্তু এখন মনে হয় না আমার পক্ষে আর সাহায্য করা সম্ভব হবে।’

বিজ্ঞাপন

এ কথা বলার পরই একজন বন্ধু বললেন, ‘ভাইয়া, আপনি হয়তো ভুল করে বলে ফেললেন, আর সাহায্য করা সম্ভব হবে না। আমরা সবাই মিলে চাইলে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।’

সবার সম্মতিতে তৈরি হলো ‘অনলাইন হেল্পলাইন প্রজেক্ট’। পরদিন থেকে শুরু হলো টাকা উত্তোলন কার্যক্রম। কার্যনির্বাহী সদস্য এবং সব বন্ধুর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ঘর নির্মাণের জন্য যথেষ্ট পরিমাণ টাকা সংগ্রহ হলো। বন্ধুরা প্রতিবছর শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানা কাজে সাহায্যের চেষ্টা করেন। সেই বন্ধুরাই আর্থিক সহযোগিতার মাধ্যমে ভূমিকা পালন করল এই প্রচেষ্টায়।

সবার আপ্রাণ চেষ্টায় নতুন ঘর তৈরি হলো লালমনিরহাটের সহায়–সম্বলহীন সেই নারীর। এখন আর ঘরে কোনো কুকুর ঢোকে না, আসে না শীতের হিম শীতল হাওয়া।

মন্তব্য করুন