default-image


কোভিড-১৯ মহামারিকালে মানুষকে নতুন নানা অভ্যাস ও সামাজিক নিয়মে অভ্যস্ত করতে কাজ করছে প্রথম আলো বন্ধুসভা। এবার সঙ্গে যুক্ত হলো জনস হপকিন্স সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রামস।
মানবিক মূল্যবোধে উজ্জীবিত সারা দেশের বন্ধসভার বন্ধুদের অংশগ্রহণে যৌথভাবে নানা কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবে বন্ধুসভা ও জনস হপকিন্স সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রাম।

৭ আগস্ট বিশ্ব মাস্ক সপ্তাহের শুরুর দিনে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় এই যৌথ কর্মসূচি শুরু হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ‘করোনার দিনগুলি’ শিরোনামে কোভিড-১৯ বিষয়ে তরুণদের উদ্বুদ্ধকারী গল্প লেখা প্রতিযোগিতা, ‘করোনাকালে চারপাশ’ শিরোনামে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ‘করোনাকালে যাপিত জীবন ও প্রতিরোধে বিশেষ উদ্যোগ’ শিরোনামে ভিডিওগ্রাফি প্রতিযোগিতা এবং ‘করোনাকালের দিনরাত্রি’ শিরোনামে আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা। কোভিড প্রতিরোধে সচেতনতামূলক ডিজিটাল ক্যাম্পেইন এবং জীবনযাপনের দক্ষতা অর্জনে প্রশিক্ষণ কর্মশালা হবে। পুরো কর্মসূচি চলবে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

যৌথ এই কার্যক্রম বিষয়ে জনস হপকিন্স সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রামসের ডেপুটি চিফ অব পার্টি ও এসবিসিসি অ্যাডভাইজার ডা. ফয়সাল মাহমুদ বলেন, ‘তরুণেরা যেকোনো সময়ের সবচেয়ে বড় সম্পদ। সমাজ পরিবর্তনের সঙ্গে যদি তরুণদের সম্পৃক্ত করা যায়, তাহলে সহজেই কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব। সারা দেশে বন্ধুসভার বন্ধুরা যেহেতু বিভিন্ন ধরনের মানবিক কাজে জড়িত, তাই আমরা এই কাজের সহযোগী হিসেবে বন্ধুসভাকেই বেছে নিয়েছি।’

বন্ধুসভা জাতীয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ড. মুমিত আল রশিদ বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে আমাদের বন্ধুরা সারা দেশে মানবিক ও সচেতনতামূলক নানা কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে। বিশেষ করে করোনা মহামারির এই কঠিন সময়েও তারা বসে নেই। দরিদ্রদের মাঝে খাদ্য ও অন্যান্য সহায়তা প্রদানসহ নানা কাজ করছে তারা। এমনকি সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় কিংবা চলমান বন্যায়ও বন্ধুরা মানবতা ও স্বেচ্ছাসেবার মহান দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে। জনস হপকিন্সের সঙ্গে যৌথ এই কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নিজেদের দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ পাবে বন্ধুরা।’

করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে প্রচার-প্রচারণা আরও ব্যাপকভাবে বাড়ানোর অগ্রাধিকারমূলক উদ্দেশ্য নিয়েই বন্ধুসভা ও জনস হপকিন্স সেন্টার ফর কমিউনিকেশন প্রোগ্রামস একযোগে এই কর্মসূচি শুরু করেছে।
এই উদ্যোগটি যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউনাইটেড স্টেটস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট (ইউএসএআইডি)-এর সহযোগিতায় তৈরী ও উদ্যোগটির সকল তথ্য/বিষয়াদির দায়ভার ব্রেকথ্রু অ্যাকশন প্রকল্পের। এখানে প্রকাশিত মতামতের সাথে ইউএসএআইডি বা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের মতামতের মিল নাও থাকতে পারে।

কর্মসূচি সমন্বয় করছেন বন্ধুসভা জাতীয় পরিচালনা পর্ষদের অর্থ ও তহবিল বিষয়ক সম্পাদক জাফর সাদিক। এই কর্মসূচির কাজে আরও যুক্ত আছেন বন্ধুসভা জাতীয় পর্ষদের সোলায়মান কবির, প্রিন্স শাহ আলম, সাইদুল হাসান, মোহতারিমা রহমান, সজল মিত্র রিচার্ড, ফরহাদ পারভেজ লিখন, কাজী হাসান রবিন, আব্দুল ওহাব, খায়রুন্নাহার খেয়া, পৌলমি অদিতি অন্তরা, ফারহান কবির সিফাত এবং ঢাকা মহানগর বন্ধুসভার সৈকত বরণ শীল ও ফাহমিনা বর্ষা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0