default-image

বর্তমান শতাব্দীর সবচেয়ে ভয়াবহ মহামারি হচ্ছে করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯। করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশসহ পৃথিবীজুড়েই শিক্ষায় বিরূপ প্রভাব পড়েছে। বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তাই বাধ্য হয়েই ছাত্রছাত্রীরা বাড়িতে থেকেই অনলাইনে তাদের পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী এই মহামারির মধ্যে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের অনলাইন কার্যক্রম ব্যাপকভাবে শুরু করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্ববিদ্যালয় পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ কর্তৃক নিয়মিতভাবে আয়োজন করা হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফিজিকস ওয়েবিনার। ইতিমধ্যে ৩০টির বেশি ওয়েবিনার সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। নিয়মিত এই আন্তর্জাতিক ফিজিকস ওয়েবিনার ভবিষ্যতেও চলমান থাকবে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

আন্তর্জাতিক ফিজিকস ওয়েবিনারে বাংলাদেশ, ভারত, জাপান, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, ইতালি, গ্রিস, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের খ্যাতিমান পদার্থবিজ্ঞানীরা অংশগ্রহণের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের সামনে তুলে ধরছেন কসমিক রে, ব্ল্যাক হোল, পার্টিকেল ফিজিকস, গ্র্যাভিটেশনাল ওয়েভসহ বর্তমান বিশ্বে পদার্থবিজ্ঞানের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ।

এই আন্তর্জাতিক ফিজিকস ওয়েবিনার নিয়মিত সঞ্চালনা করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান প্রীতম কুমার দাস। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে নামকরা বিজ্ঞানীদের কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহণের পাশাপাশি তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগের দারুণ সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে এই ওয়েবিনারগুলোর মাধ্যমে। অনলাইন ওয়েবিনার হওয়ায় করোনা মহামারির মধ্যেও শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসা থেকে সহজেই অংশগ্রহণের পাশাপাশি সুযোগ পাচ্ছে বিশ্বমানের শিক্ষা অর্জনের।

বিজ্ঞাপন

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ আয়োজিত এই আন্তর্জাতিক ফিজিকস ওয়েবিনার উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এম রোস্তম আলী, সহ-উপাচার্য মো. আনোয়ারুল ইসলাম, ট্রেজারার অধ্যাপক মো. আনোয়ার খসরু পারভেজ তাঁদের মতামত ব্যক্ত করেন। তাঁরা বলেন, অনলাইনে শিক্ষার পাশাপাশি গবেষণামূলক শিক্ষাব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। পদার্থবিজ্ঞানে পড়ালেখা ও গবেষণায় আগ্রহী করে তোলার জন্য পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা এ উদ্যোগটি নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। এতে শিক্ষার্থীরা নতুন নতুন আবিষ্কার সম্পর্কে জানতে পারছেন এবং নতুন আবিষ্কারের প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0