default-image


থিয়েটারের কাগজ আনর্ত। রাজশাহী থেকে প্রকাশিত এ কাগজটি নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে নানা আলাপ-আলোচনা। নিজেকে অন্তর্বর্তী থিয়েটারের কাগজ দাবি করে পত্রিকাটি। কিন্তু পত্রিকার আকার, গেটআপ, মেকআপ এবং লেখা ও সম্পাদনার ধরন তার সে দাবিকে সমর্থন করে না; বরং আরও বড় কিছু। থিয়েটার নিয়ে এত বড় কাগজ বা পত্রিকা বাংলাদেশে নেই বললেই চলে। যেগুলো আছে, সেগুলোর অন্য রকম, অন্য ধরনের বড়।
আনর্ত তার একটা ধরন নির্ধারণ করেছে। একটু ভিন্ন ধারাবাহিকতায় লেখা ছাপছে তারা, যা থেকে উঠে আসছে থিয়েটারের রকমফের, নাটক, আলাপ, ঐতিহ্য অন্বেষা, পাঠ ও বিবেচনা, নির্মিতি, তর্পণ, ইতিহাস, মঞ্চনাট্য দর্পণ ও বিভাবনের মতো যুগোপযোগী থিয়েটার–ভাবনা। ইতিমধ্যে তিনটি সংখ্যা বের হয়েছে। চলছে চতুর্থ সংখ্যার কাজ। প্রতি সংখ্যায় লেখা প্রকাশের মধ্য দিয়ে এক গবেষণাধর্মী কাজও করছে আনর্ত। থিয়েটারের রকমফের শিরোনামে ইতিমধ্যে মিনিমালিস্ট থিয়েটার, পিপল্স থিয়েটার, পুতুলনাট্য, মনিপুরি নাট্য, চাকমা নাটক, মূকাভিনয়, প্রত্ননাট্য, লোকনাট্য, গ্রুপ থিয়েটার, গ্রাম থিয়েটার, ইমিডিয়েট থিয়েটার, অ্যাপ্লাইড থিয়েটার, থিয়েটার ফর থেরাপি প্রভৃতি বিষয়ে প্রকাশ গবেষণাধর্মী প্রবন্ধ।
থিয়েটারের পাথেয় মানুষদের স্বপ্ন ও সংগ্রামের কথা সংরক্ষণ করছে ‘আলাপ’ শিরোনামে। ‘আনর্ত আড্ডা’র মধ্য দিয়ে সেখানে প্রকাশিত হয়েছে সৈয়দ জামিল আহমেদ, ফেরদৌসী মজুমদার, শিমূল ইউসুফ, লাকী ইনামের সাক্ষাৎকার। মঞ্চের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো স্থান পেয়েছে ‘নির্মিতি’ শিরোনামে। যেখানে সন্নিবেশিত মঞ্চায়নসূত্র, নন্দন-ভাবনা, বিভিন্ন ব্যক্তির নাট্যনির্মাণের ধরন, মঞ্চে আলোর ব্যবহার, সংগীতের ব্যবহার, পোশাকের পরিকল্পনা ও প্রয়োগ প্রভৃতি মঞ্চের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। মঞ্চনাট্য দর্পণ অংশে রয়েছে দেশের আলোচিত বেশ কিছু মঞ্চনাটকের আলোচনা। রয়েছে বাংলা নাটকের ইতিহাস-ঐতিহ্য অন্বেষণের প্রয়াস ও নাটকের পাণ্ডুলিপি প্রকাশ। কাগজটি ‘আনর্ত নাট্যমেলা’ শিরোনামে দুই দিনব্যাপী থিয়েটারের মানুষের মিলনমেলাও করেছে। এই মুহূর্তে চলছে ‘আনর্তমঙ্গল নাট্যোৎসব’র প্রস্তুতি।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক রহমান রাজু সম্পাদিত এই থিয়েটারের কাগজটি পাওয়া যায় রাজশাহীর বুক পয়েন্ট ও বিদ্যাসাগর এবং ঢাকার তক্ষশীলা, পাঠক সমাবেশ, বিদিত ও বাতিঘরে।

সহযোগী সম্পাদক, আনর্ত

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0